বুধবার, ১০ ফেব্রুয়ারী, ২০২১

প্রযুক্তির পরিবর্তন এবং কৃষিক্ষেত্র(Technological Shifting and Agriculture)

 প্রযুক্তির পরিবর্তন কৃষিক্ষেত্রে কি ধরনের পরিবর্তন এনেছে আলোচনা করো। অথবা

জীবনধারন ভিত্তিক কৃষি থেকে বাণিজ্যিক কৃষিতে উত্তোরনের ক্ষেত্রে প্রযুক্তির ভূমিকা কি?(Role of technology for shifting Subsistence Agriculture to Commercial Agriculture)


      ভারতসহ অন্যান্য উন্নয়নশীল দেশে জীবনধারণের জন্য বা ভরণপোষণের জন্য যে কৃষি কাজ করা হয় তাকে জীবনধারনভিত্তিক কৃষি(Subsistence Agriculture) বা জীবিকাসত্ত্বাভিত্তিক কৃষি বলে। কিন্তু বর্তমানে জীবিকাসত্ত্বাভিত্তিক কৃষিতে ব্যাপক পরিবর্তন লক্ষ করা যায়। মূলত নতুন উপকরণের প্রয়োগের ফলে কৃষিক্ষেত্রে নজরকাড়া পরিবর্তন এসেছে। 

     যে সকল কারণে  জীবনধারণভিত্তিক কৃষি বাণিজ্যিক কৃষিতে পর্যবসিত হয়েছে তা আলোচনা করা হলো-

১. পরিকল্পনা গ্রহণ(Planning)

        অনেক সময় কৃষিক্ষেত্রে প্রশাসনের বিভিন্ন পরিকল্পনা গ্রহণের মাধ্যমে কৃষিজাত দ্রব্যের উৎপাদন অনেক গুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। যেমন- ভারতে 1951-1956 সালে প্রথম পঞ্চবার্ষিকী পরিকল্পনায় কৃষি উন্নয়নের ওপর জোর দেওয়া হয়েছিল। ফলে উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছিল। 2007-2012 সালে দ্বাদশ পরিকল্পনায় পরিকাঠামো উন্নয়ন, জলসেচ, জলসম্পদ ব্যবস্থাপনা এবং খাদ্য সুরক্ষার ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছিল।


২. উচ্চ ফলনশীল বীজের ব্যবহার(High Yielding Variety Seed)


         1967-68 সালে ভারতে কৃষিজাত পণ্যের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য উচ্চফলনশীল বীজের ব্যবহার শুরু হওয়ায় পাঞ্জাব ও হরিয়ানা রাজ্যে গমের ফলন ব্যাপক বৃদ্ধি পায়। এই ঘটনা সবুজ বিপ্লব(Green Revolution) নামে পরিচিত।


৩. কৃষিতে যান্ত্রিকীকরণের সুবিধা(Benefits of Technology in Agricultural Field)

         কৃষিজ ও শস্যের উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য ট্রাক্টর, ড্রিলার, পাম্পসেট প্রভৃতি যন্ত্রপাতি কৃষি ক্ষেত্রে ব্যবহার করা হচ্ছে।


৪. জল সেচের সুবিধা(Irrigation)

         বৃষ্টিপাতের অনিশ্চয়তা দূর করার জন্য এবং স্বল্প বৃষ্টিপাত যুক্ত অঞ্চলে বছরে একাধিকবার চাষ দেওয়ার জন্য জলসেচের প্রয়োজনীয়তা অনস্বীকার্য। ভারতে 2005 সাল থেকে প্রতি বছর গড়ে 19 লক্ষ হেক্টর জমি সেচ পরিষেবার আওতায় আনা হচ্ছে।


৫. কৃষি ঋণ এবং কৃষি বীমার সুবিধা

            কৃষি ঋণের সাহায্যে কৃষক চাষের উপকরণ গুলি সংগ্রহ করার জন্য পুঁজির যোগান পায়। কৃষি বীমা, শস্য বীমার আওতায় কৃষকের ঝুঁকির পরিমাণ কমে। ফলে কৃষি আরও বাণিজ্যিক হয়। প্রসঙ্গত ভারতে 2009-10 সাল পর্যন্ত মোট 384514 কোটি টাকা কৃষি ঋণ বাবদ দেওয়া হয়েছে।


৬. ভূমি সংস্কারের সুযোগ(Land Reform)


           ভূমি সংস্কারের সুফল হিসেবে ভূমিহীন চাষীরা চাষের জমি পায়। বেনামি জমি উদ্ধার করা হয়। বহু পতিত জমি এবং অব্যবহৃত জমিকে কৃষিকাজের আওতায় আনা হয় এবং ছোট জোত গুলিকে একত্রিত করে বড়ো জোতে রূপান্তরিত করার সুযোগ বাড়ে। ফলে প্রান্তিক কৃষি বাণিজ্যিক কৃষিতে পরিণত হতে পারে।


৭. গ্রামাঞ্চলে বিদ্যুতের জোগান(Electricity Supply)

       গ্রামাঞ্চলে বিদ্যুৎ সরবরাহের কাজ শুরু হওয়ায় ভারতের কৃষি ক্ষেত্রে আমূল পরিবর্তন হয়েছে। বিদ্যুৎ চালিত পাম্পসেট এর সাহায্যে জলসেচ এর সুবিধা বৃদ্ধি পেয়েছে। শুধু তাই নয়, রেডিও ও টেলিভিশন এর মাধ্যমে কৃষকদের চাষবাসের নতুন উন্নতি সম্পর্কে তথ্য, কৃষি পরামর্শ এবং আবহাওয়ার খবরাখবর দেওয়া সম্ভব হয়েছে।


           এছাড়া কৃষিকে বাণিজ্যিক পর্যায়ে উন্নতি করার জন্য রাসায়নিক সার, জৈব সার, কীটনাশক ও আগাছানাশক, গুদামজাতকরন এর সুবিধা, আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে কৃষি পণ্যের বাজার বৃদ্ধি প্রভৃতি উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।


কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Monsoon Though (মৌসুমী ট্রাফ)//Break of Monsoon বা বৃষ্টিপাতের ছেদ//Onset Vortex//N.L.M.(Normal Limit of Monsoon)

 Monsoon Though (মৌসুমী ট্রাফ) কি?       বিস্তীর্ণ অঞ্চলজুড়ে নিম্নচাপ অবস্থান করলে তাকে Though বলে। মৌসুমী বায়ু ভারতে আগমনের পূর্বে 5 ডিগ...