বৃহস্পতিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২০

এল নিনো ( El Nino)/লা নিনা (La Nina)

 এল নিনো ( El Nino) কি? এল নিনো কোন মাসে দেখা যায়? এল নিনো কোন মহাসাগরে দেখা যায়? এল নিনো কোথায় দেখা যায়? লা নিনা কি? এল নিনো কিভাবে ভারতের মৌসুমী বায়ুকে প্রভাবিত করে?






এল নিনো (El Nino) কি?

      "এল নিনো" শব্দটি স্পেনীয় শব্দ। যার অর্থ শিশু খ্রীষ্ট( (Christ Child)। ডিসেম্বর মাসে বড়দিনের সময় প্রশান্ত মহাসাগরের পূর্ব দিকে সৃষ্ট উষ্ণ সমুদ্রস্রোতকে এল নিনো বলে। দক্ষিণ আমেরিকা সংলগ্ন প্রশান্ত মহাসাগরের পেরু উপকূলে অস্থির উষ্ণ সমুদ্র স্রোত হল এল নিনো।


এল নিনো উৎপত্তির কারণ

      এল নিনো উৎপত্তি সম্পর্কে নানান মতবাদ প্রচলিত রয়েছে। এগুলি হলো

i) সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতার পার্থক্য

         স্বাভাবিক অবস্থায় দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরের পূর্ব দিকে পেরু উপকূলে শীতল হামবোল্ড বা পেরু স্রোত ঊর্ধ্বগামী হয়। ফলে সমুদ্রপৃষ্ঠে শীতল জল অবস্থান করে।দক্ষিণ-পূর্ব আয়ন বায়ুর প্রভাবে এই জলরাশি পশ্চিমের উষ্ণ অঞ্চলে স্থানান্তরিত হয়। ফলে পূর্বভাগের তুলনায় পশ্চিমভাগের সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি পেতে থাকে। ফলস্বরূপ সমুদ্রপৃষ্ঠে একটি  পূর্বমুখী ঢালের সৃষ্টি হয়। 
         প্রশান্ত মহাসাগরের উভয় পার্শ্বে জলের উচ্চতার পার্থক্য যখন 50 থেকে 100 সেন্টিমিটার হয় তখন সমতা রক্ষার জন্য পশ্চিমের উষ্ণ সমুদ্রজল পূর্ব দিকে অগ্রসর হয়। পেরু এবং চিলির পশ্চিম উপকূলে তখন উষ্ণ সমুদ্র জল উপস্থিত হয় এবং উষ্ণ সমুদ্র স্রোত রূপে দক্ষিণে অগ্রসর হয় অর্থাৎ এল নিনোর আবির্ভাব হয়। এর ফলে প্রশান্ত মহাসাগরের পূর্ব দিকে নিম্নচাপ অবস্থান করে এবং বৃষ্টিপাত হয়। কিন্তু পশ্চিম দিকে উচ্চচাপ অবস্থান করায় শুষ্ক ও বৃষ্টিহীন থাকে। এই সময় দক্ষিণী দোলন সক্রিয় হয়।


ii) সমুদ্রতলদেশে ভূমিকম্প ও অগ্নুৎপাত

          কোন কোন সমুদ্র বিজ্ঞানী মনে করেন প্রশান্ত মহাসাগরের তলদেশে সামুদ্রিক শৈলশিরা থেকে ভূমিকম্প ও অগ্ন্যুৎপাতের ফলে নির্গত তাপপ্রবাহ এল নিনো সংগঠনে সহায়তা করে।

iii) উষ্ণ স্থান

          আবহবিজ্ঞানী ভি. বার্কনেস এর মতে প্রশান্ত মহাসাগরে কোন উষ্ণ স্থানের উৎপত্তি হলে এল নিনোর আবির্ভাব হয়।
    প্রকৃতপক্ষে এল নিনো সম্পর্কে অনেক কিছু জানা গেলেও এটি কেন সৃষ্টি হয় সে সম্পর্কে এখনো কিছু জানা সম্ভব হয়নি।

লা নিনা (La Nina)

    লা নিনা শব্দের অর্থ শিশু কন্যা (Little Girl)। প্রশান্ত মহাসাগরের পূর্ব দিকে পেরু উপকূলে সমুদ্রপৃষ্ঠের জলের  উষ্ণতা স্বাভাবিক উষ্ণতার চেয়ে 4° সেলসিয়াস কমে গেলে যে শীতল সমুদ্র স্রোত প্রবাহিত হয় তাকে লা নিনা(La Nina) বলে। এটি এল নিনোর বিপরীত অবস্থা।
      লা নিনাকে অন্য কথায় বলা হয় এল ভিয়েজো (El-viejo) প্রতি এল-নিনো( Anti El Nino) সহজ ভাষায় "এক শীতল ঘটনা"

বৈশিষ্ট্য

১. ওয়াকার সঞ্চালনের স্বাভাবিক অবস্থায় লা-নিনার আবির্ভাব ঘটে।
২. ইকুয়েডর, পেরু এবং চিলি উপকূলের সমুদ্র জলের উষ্ণতা স্বাভাবিকের তুলনায় 4° সেলসিয়াস হ্রাস পায়
৩. লা নিনার সময় থার্মোক্লাইন স্তর উপরে উঠে আসে।
৪. লা নিনা পর্যায়ে শীতল সমুদ্র জল উপরে উঠে আসে।  
৫. লা-নিনা অবস্থা 6 মাস থেকে 2 বছর পর্যন্ত থাকতে পারে।  

এলনিনো কিভাবে ভারতের মৌসুমী বায়ুকে প্রভাবিত করে?  

        এল নিনোর সঙ্গে ভারতের দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমি বায়ু গভীর সম্পর্ক রয়েছে। এল নিনো আবির্ভাবের ফলে ভারতীয় মৌসুমী বায়ু  এবং বৃষ্টিপাত প্রভাবিত হয়।

      এল নিনোর আবির্ভাব এর ফলে ইকুয়েডর, পেরু এবং চিলি উপকূলে বা প্রশান্ত মহাসাগরের পূর্ব উপকূলে নিম্নচাপ ক্ষেত্রের সৃষ্টি হয়। ফলে ভারত মহাসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপ দুর্বল হয়। ভারত মহাসাগর থেকে যে পরিমাণ উষ্ণ ও আর্দ্র মৌসুমী বায়ু নিরক্ষরেখা অতিক্রম করে ভারতবর্ষে প্রবেশ করার কথা তা প্রশান্ত মহাসাগরের পূর্ব উপকূলে সৃষ্ট হওয়া  নিম্নচাপ ক্ষেত্রের দিকে অগ্রসর হয়।

ফলে ভারতবর্ষে বর্ষাকালে কম বৃষ্টিপাত হয় এবং বৃষ্টিপাতের অনিশ্চয়তা দেখা যায়। দেশের পশ্চিম দিকের রাজ্যগুলিতে খরা পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়।



৪টি মন্তব্য:

Monsoon Though (মৌসুমী ট্রাফ)//Break of Monsoon বা বৃষ্টিপাতের ছেদ//Onset Vortex//N.L.M.(Normal Limit of Monsoon)

 Monsoon Though (মৌসুমী ট্রাফ) কি?       বিস্তীর্ণ অঞ্চলজুড়ে নিম্নচাপ অবস্থান করলে তাকে Though বলে। মৌসুমী বায়ু ভারতে আগমনের পূর্বে 5 ডিগ...