বুধবার, ৩০ সেপ্টেম্বর, ২০২০

নাতিশীতোষ্ণ ঘূর্ণবাতের জীবনচক্র (Temperate Cyclone)

 নাতিশীতোষ্ণ ঘূর্ণবাতের জীবনচক্র আলোচনা করো। নাতিশীতোষ্ণ ঘূর্ণবাত (Temperate Cyclone) নাতিশীতোষ্ণ ঘূর্ণবাত বলতে কী বোঝো? অক্লুসান কি?



নাতিশীতোষ্ণ ঘূর্ণবাতের জীবনচক্র (Origin of Temperate Cyclone)

          মধ্য অক্ষাংশে নাতিশীতোষ্ণ অঞ্চলে সৃষ্ট ঘূর্ণবাত কে নাতিশীতোষ্ণ ঘূর্ণবাত বলে। এই ঘূর্ণবাত এর জীবন চক্রকে নরওয়ের আবহবিদ ভি. বার্কনেস( Vilhelm Bjerknes) এবং সোলবার্গ (Solberg) 6 টি পর্যায়ে বিভক্ত করে আলোচনা করেছেন। এগুলি হল-

নাতিশীতোষ্ণ ঘূর্ণবাত প্রবণ অঞ্চল


i) প্রথম পর্যায়(সাম্য সীমান্ত গঠন)

           এই পর্যায়ে মেরু অঞ্চল থেকে আগত শীতল, শুষ্ক ও ভারি মেরু বায়ু এবং ক্রান্তীয় অঞ্চল থেকে আগত উষ্ণ, হালকা ও আদ্র পশ্চিমা বায়ু পরস্পরের মুখোমুখি হয়। মেরু বায়ু পূর্ব থেকে পশ্চিমে এবং পশ্চিমা বায়ু পশ্চিম থেকে পূর্বে পাশাপাশি প্রবাহিত হয়। উভয় প্রকার বায়ুর মধ্যস্থলে একটি সাম্য সীমান্ত গঠন করে।

ii) দ্বিতীয় পর্যায় (উষ্ণ ও শীতল সীমান্ত গঠন)

              এই পর্যায়ে শীতল বায়ু দিক পরিবর্তন করে উত্তর থেকে দক্ষিনে উষ্ণ বায়ুপুঞ্জের  মধ্যে প্রবেশ করে শীতল সীমান্ত (Cold Front) গঠন করে।
          উষ্ণ বায়ুর সংকুচিত হয় এবং দিক পরিবর্তন করে দক্ষিণ থেকে উত্তরে শীতল বায়ুর মধ্যে প্রবেশ করার চেষ্টা করে ও উষ্ণ সীমান্ত ( Warm Front) গঠন করে। উষ্ণ ও শীতল সীমান্তের মিলন বিন্দুকে তরঙ্গশীর্ষ( Wave crest) বলা হয়।

iii) তৃতীয় পর্যায় (বাত-তরঙ্গের বিকাশ)

             এই পর্যায়ে সীমান্তের বক্রতা বৃদ্ধি পায়। শীতল বায়ু অধিক সক্রিয় হওয়ায় বলপূর্বক উষ্ণ বায়ুর মধ্যে প্রবেশ করে। ফলে উষ্ণ সীমান্ত সংকীর্ণ এবং শীতল সীমান্ত প্রশস্ত হতে থাকে।
নাতিশীতোষ্ণ ঘূর্ণবাতের জীবনচক্র



iv) চতুর্থ পর্যায়(ঘূর্ণবাতের প্রাবল্য)

            এই পর্যায়ে শীতল বাতাস মাটি ঘেঁষে অগ্রসর হয়ে উষ্ণ বাতাসকে দ্রুত সরিয়ে দিতে থাকে। কিন্তু উষ্ণ বাতাস শীতল বাতাস কে ঠেলে দ্রুত অগ্রসর হতে পারে না। ফলে উষ্ণ বাতাস দ্রুত উপরে উঠতে থাকে এবং ঘনীভূত হয়ে মেঘ ও বৃষ্টির সৃষ্টি করে।
            এই পর্যায়ে সীমান্তের বক্রতা সর্বাধিক হয় এবং ঘূর্ণবাতটি পরিপূর্ণ হতে থাকে।

v) পঞ্চম পর্যায় (অক্লুডেড সীমান্ত গঠন)

             শীতল সীমান্ত উষ্ণ সীমান্তের দিকে দ্রুতবেগে এগিয়ে গিয়ে অনায়াসে একটি বক্র সীমান্ত বরাবর উষ্ণ সীমান্তের সাথে মিলিত হয় এবং একটিমাত্র সীমান্ত সৃষ্টি করে। এধরনের সীমান্তকে অক্লুডেড সীমান্ত (Occluded Front) বা অবরুদ্ধ সীমান্ত বলে। উষ্ণ বায়ুপুঞ্জ এর কিছু অংশ ভূপৃষ্ঠ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে অনেক উপরে শীতল বায়ু দ্বারা বেষ্টিত হয়ে অবস্থান করে। উষ্ণ বায়ুর চাপ কম থাকায় ঘূর্ণবাতের কেন্দ্র রূপে অবস্থান করে।

vi) ষষ্ঠ পর্যায়

            শীতল বায়ুপুঞ্জ দ্বারা বেষ্টিত থাকায় উষ্ণ বায়ুর উষ্ণতা ও জলীয় বাষ্পের সরবরাহ বন্ধ হয়ে যায়। উষ্ণ বায়ু পুঞ্জটি একসময় শীতল বায়ুর সঙ্গে মিশে যায়।ফলে ঘূর্ণবাত ক্রমশ দুর্বল হয় ও একসময় ঘূর্ণবাত এর মৃত্যু হয়। এরপর উষ্ণ ও শীতল বায়ু স্বাভাবিকভাবে বইতে শুরু করে।

৩টি মন্তব্য:

Monsoon Though (মৌসুমী ট্রাফ)//Break of Monsoon বা বৃষ্টিপাতের ছেদ//Onset Vortex//N.L.M.(Normal Limit of Monsoon)

 Monsoon Though (মৌসুমী ট্রাফ) কি?       বিস্তীর্ণ অঞ্চলজুড়ে নিম্নচাপ অবস্থান করলে তাকে Though বলে। মৌসুমী বায়ু ভারতে আগমনের পূর্বে 5 ডিগ...