শুক্রবার, ২৮ আগস্ট, ২০২০

ট্রপোস্ফিয়ারের বৈপরীত্য উষ্ণতা সৃষ্টির কারণগুলি উল্লেখ করো।

 ট্রপোস্ফিয়ারের বৈপরীত্য উষ্ণতা সৃষ্টির কারণগুলি উল্লেখ করো।




    বায়ুমণ্ডলের বিভিন্ন স্তর গুলির মধ্যে ভূপৃষ্ঠ সংলগ্ন স্তরটিকে ট্রপোস্ফিয়ার বলে। ট্রপোস্ফিয়ারে উচ্চতা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে উষ্ণতা হ্রাস পায়। ট্রপোস্ফিয়ারে উচ্চতা বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে উষ্ণতা বৃদ্ধি পেলে তাকে বৈপরীত্য উষ্ণতা বলে।

       বৈপরীত্য উষ্ণতা সৃষ্টির কারণ গুলি নিচে আলোচিত হলো।----

১. ক্যাটাবেটিক বায়ু

     নাতিশীতোষ্ণ অঞ্চলের পার্বত্য উপত্যকায়, উপরের অংশে অবস্থিত শীতল ও ভারি বায়ু(ক্যাটাবেটিক বায়ু) ঢাল বরাবর পার্বত্য উপত্যকায় নেমে এলে উপত্যকার নিচু অংশে শীতল বায়ুর অবস্থান করে এবং উপত্যকায় থাকা অপেক্ষাকৃত উষ্ণ বায়ু উপরের দিকে স্থানান্তরিত হয়। ফলে বৈপরীত্য উষ্ণতা সৃষ্টি হয়।



২. ঊর্ধ্ব আকাশে বায়ুর অবনমন

      অধিক উচ্চতায় শুষ্ক ও ভারী বায়ুর অবনমন ঘটলে উষ্ণতা বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হয়ে বৈপরীত্য উষ্ণতা সৃষ্টি হয়।




৩. তাপ বিকিরণ

    শীতকালে মহাদেশের কোন কোন অংশ অতি দ্রুত তাপ বিকিরণ করে ভূপৃষ্ঠ সংলগ্ন বায়ুকে শীতল করে। সেই তুলনায় উপরের বায়ো বায়ু শীতল হয় না বরং অপেক্ষাকৃত উষ্ণ থাকে। এর ফলে বৈপরীত্য উষ্ণতা সৃষ্টি হয়।


৪. বিপরীত দিক থেকে ভিন্নধর্মী বায়ুর আগমন

    পরস্পর বিপরীত দিক থেকে আগত উষ্ণ ও শীতল বায়ু পরস্পর মিলিত হলে উষ্ণ বায়ু শীতল বায়ু ঢাল বরাবর উপরে উঠে যায় এবং বৈপরীত্য উষ্ণতা সৃষ্টি করে।

কোন মন্তব্য নেই:

একটি মন্তব্য পোস্ট করুন

Monsoon Though (মৌসুমী ট্রাফ)//Break of Monsoon বা বৃষ্টিপাতের ছেদ//Onset Vortex//N.L.M.(Normal Limit of Monsoon)

 Monsoon Though (মৌসুমী ট্রাফ) কি?       বিস্তীর্ণ অঞ্চলজুড়ে নিম্নচাপ অবস্থান করলে তাকে Though বলে। মৌসুমী বায়ু ভারতে আগমনের পূর্বে 5 ডিগ...